মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ০৭:২৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
চনপাড়াবাসী বঙ্গবন্ধুর রেখে যাওয়া আমানত: পাপ্পা গাজী পুলিশের যারা সমালোচনা করে তাদের মুখে ছাই পড়ুক : আইজিপি আগামী সপ্তাহেই চার জেলার ড্রাইভিং লাইসেন্স বিতরণ শুরু প্রবাসীর স্ত্রীর হাত ঝলসে দিলেন ‘প্রতিপক্ষ মা-মেয়ে’ রমজানে বন্ধ থাকবে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ডিজিটাল নিরাপত্তা দেওয়া আমাদের দায়িত্ব : প্রধানমন্ত্রী পুলিশ সদস্যদের মোবাইল ফোন ব্যবহারে কঠোর নির্দেশনা ড্রাইভার ভাইয়েরা গাড়ি চালানোর সময় অযথা হর্ণ বাজাবেন না : বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ বন্দুকযুদ্ধ হলে কি পুলিশ বন্দুক ফেলে পালিয়ে আসবে, প্রশ্ন আইজিপির লেখক মুশতাকের মৃত্যু না পরিকল্পিত হত্যা : নিরপেক্ষ বিভাগীয় তদন্তের দাবি

নির্বাচন কমিশন সিরিয়াল কিলার: ডা. জাফরুল্লাহ

ডেস্ক: বর্তমান নির্বাচন কমিশনকে সিরিয়াল কিলার হিসেবে অভিহিত করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন পদ্ধতি বাতিলের দাবি পরিষদের ব্যানারে এ মতবিনিময় সভায় বক্তব্যকালে তিনি এ মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার সাহেব ভালো কথা বলেছেন। কিন্তু উনি পদত্যাগ করেন না কেন? এই নির্বাচন কমিশনে থেকে উনার লাভ কী? আমি তাকে আহ্বান করবো, আপনি পদত্যাগ করেন।

মাহবুব তালুকদারের উদ্দেশে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আপনি পদত্যাগ করে উদাহরণ সৃষ্টি করেন। আপনি যে জিনিসগুলো তুলে ধরেছেন এতে করে আমাদের শক্তি সঞ্চয় হবে। দেশবাসী বুঝবে, অন্তত একজন হলেও প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর আছেন। এই প্রতিবাদের মাধ্যমেই আমরা নতুন বাংলাদেশ সৃষ্টি করবো।

পরিষদের পক্ষ থেকে এ সময় চার দফা দাবি জানানো হয়। দাবিগুলো হলো-

১. গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ, ১৯৭২ আইনে সংযোজিত ৯০ বি ধারাসহ সকল কালো আইন বাতিল করে শুধুমাত্র কেন্দ্রীয় কমিটি, কেন্দ্রীয় অফিস ও গঠনতন্ত্রের ভিত্তিতে রাজনৈতিক দলের নিবন্ধনের বিধান চালু করা হোক।

২. স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ক্ষেত্রে এক শতাংশ ভোটারের আগাম স্বাক্ষরের বিধান বাতিল করা হোক।

৩. নির্বাচন প্রক্রিয়ায় নির্বাহী বিভাগের কর্তৃত্ব বন্ধ করা হোক এবং

৪. স্থানীয় সরকার নির্বাচনে দলীয় প্রতীকের ব্যবহার বন্ধ করা হোক।

তিনি বলেছেন, সরকার, আমলা ও পুলিশের মদদপুষ্ট এই কমিশন গণতন্ত্র, আশা-আকাঙ্ক্ষাগুলো একের পর এক হত্যা করেই যাচ্ছে। একবার হত্যা করে তারা থামছে না, বার বার কাটা ঘাঁয়ে লবন দিয়েই যাচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে এই নির্বাচনকে শাস্তির আওতায় আনা হবে।

বক্তব্যে দেশের বিচার বিভাগ নিয়ে সমালোচনা করেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, দেশের এমপি বিদেশের মাটিতে যখন সাজাপ্রাপ্ত হয়, তখন আমাদের দেশের বিচারালয় ঘুমিয়ে থাকে নির্জিব পাথরের মত, তারা দেখেও দেখে না। অথচ এখানে নিরাপরাধ ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা হয়, জেল খাটে। এই বিষয়টিকে লজ্জাজনক বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বেসরকারি একটি কোম্পানি বিনা টেন্ডারে কাজ পাচ্ছে বলে মন্তব্য করে জাফরুল্লাহ বলেন, এর বিচার কি হবে না? এর বিচারের জন্যই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা জরুরি।

সভায় সংগঠনটির আহ্বায়ক সৈয়দ হারুন-অর-রশিদ, বিপ্লবী ওর্য়াকার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম মিন্টুসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বাংলার খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান  
Design & Developed BY ThemesBazar.Com