পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল
শিরোনাম :
Logo বগুড়ায় প্রকাশ্যে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা Logo কুমিল্লায় এনজিও সংস্থা দিয়া’র কর্মীদের প্রশিক্ষণ সভা অনুষ্ঠিত। Logo বগুড়া আদমদীঘিতে প্রয়াত সাত সাংবাদিক স্বরণে সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত Logo অতিরিক্ত ডিআইজি হারালেন মেয়েকে স্ত্রীর মৃত্যুর পর বিয়ে করেননি, মেয়ের শোক সইবেন কী করে? Logo জেলা প্রশাসক ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০২৪ ইং ফাইনালে লালমনিরহাট পৌরসভা বিজয়ী Logo বগড়া আদমদীঘিতে কৃষকরা ব্যস্ত সময় পার করছে বোরো বীজ রোপণে Logo আধুনিক সেনাবাহিনী গড়ে তুলতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী Logo বেইলি রোডে আগুন: স্ত্রী-সন্তানসহ কাস্টমস কর্মকর্তার মৃত্যু Logo বিপিএলের শিরোপা গেলো বরিশালের ঘরে Logo বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) সেবায় ভূষিত হয়েছেন আদমদিঘীর সন্তান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম।

বগুড়ায় একাধিক মামলার আসামী আন্ত:জেলা ডাকাত সর্দার গ্রেপ্তার

নাসিরা সুলতানা বগুড়া : বগুড়া:-বগুড়ায় র‍্যাবের অভিযানে ১৪টি বিচারাধীন মামলার আসামী আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সর্দারকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। শুক্রবার ভোর ৩ টার দিকে জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার আলাদিপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত জ্যাকস্ক্রু, রেঞ্জ, হাতুরি ও লোহার পাইপ উদ্ধার করা হয়। গ্রেপ্তার ওই ডাকাত সর্দারের নাম তাহাজুল ইসলাম তাহাজ্জুল (৩৮)। তিনি শিবগঞ্জ উপজেলার আলাদিপুরের মৃত আঃ জলিলের ছেলে।শুক্রবার বিকেলে র‍্যাব-১২ বগুড়া ক্যাম্পে অনুষ্ঠিত এক প্রেস ব্রিফিং এ এসব তথ্য জানান র‍্যাব-১২ বগুড়া ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার (পুলিশ সুপার) মীর মনির হোসেন। তিনি বলেন, ‘গ্রেপ্তার তাহাজুল নামে ওই ব্যক্তি ডাকাত দলের সর্দার। তার নামে বিভিন্ন থানায় চুরি ও ডাকাতির মোট ১৪ টি মামলা রয়েছে। এ পর্যন্ত ৫ শতাধিক গরু চুরি ও ডাকাতি করেছে বলে প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছে ওই ডাকাত সর্দার।’ র‍্যাবের এই কর্মকর্তা আরো বলেন, গ্রেপ্তার ওই ডাকাত সর্দার তার সহযোগীদের নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতি করেন। তার নামে এ পর্যন্ত বিভিন্ন থানায় ১৪ টি চুরি ও ডাকাতির মামলা রয়েছে। এর মধ্যে বগুড়া জেলার সদর থানায় ০৬টি, নওগাঁ জেলার বদলগাছী থানায় ০২টি, বগুড়া জেলার শাজাহানপুর থানায় ০২টি, রংপুর জেলার কাউনিয়া থানায় ০১টি, জিএমপি’র কোনাবাড়ী থানায় ০১টি, গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ থানায় ০১টি, জয়পুরহাট কালাই থানায় ০১টি মামলা রয়েছে। গ্রেপ্তার তাহাজ্জুল চক্রের কয়েকজন সক্রিয়ভাবে ডাকাতি করে। কয়েকজন ডাকাতির মালামাল অন্যত্র পরিবহন করে নিয়ে যায়। আর অন্যান্য সদস্যরা লুন্ঠনকৃত মালামাল বিক্রয়ের ব্যবস্থা করে। তাদের নির্দিষ্ট ক্রেতা রয়েছে। এ যাবত ৪ থেকে ৫’শ গরু চুরি ও ডাকাতি করেছে বলে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়।আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আসামিকে শিবগঞ্জ থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানান র‍্যাবের এই কর্মকর্তা।
এর আগে গত ২৩ জানুয়ারি টাঙ্গাইলের জামাল হোসেন নামে এক গরু ব্যবসায়ী একটি ট্রাকে করে ২২ টি গরু নিয়ে নীলফামারীর উদ্দেশ্যে রওনা দেন। পথে শিবগঞ্জ থানার রহবল এলাকায় পৌঁছালে ডাকাতদলের কবলে পড়েন। তখন ডাকাতরা ওই গরু ব্যবসায়ী এবং তার সহযোগিদের হাত-পা বেঁধে জমিতে ফেলে গরু নিয়ে পালিয়ে যান। পরে তিনি শিবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। এর পরেই অভিযান শুরু করে ডাকাত দলের এই সর্দারকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব।

জনপ্রিয় সংবাদ

বগুড়ায় প্রকাশ্যে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

বগুড়ায় একাধিক মামলার আসামী আন্ত:জেলা ডাকাত সর্দার গ্রেপ্তার

আপডেট টাইম : ০৪:২৬:৪৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নাসিরা সুলতানা বগুড়া : বগুড়া:-বগুড়ায় র‍্যাবের অভিযানে ১৪টি বিচারাধীন মামলার আসামী আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সর্দারকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। শুক্রবার ভোর ৩ টার দিকে জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার আলাদিপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত জ্যাকস্ক্রু, রেঞ্জ, হাতুরি ও লোহার পাইপ উদ্ধার করা হয়। গ্রেপ্তার ওই ডাকাত সর্দারের নাম তাহাজুল ইসলাম তাহাজ্জুল (৩৮)। তিনি শিবগঞ্জ উপজেলার আলাদিপুরের মৃত আঃ জলিলের ছেলে।শুক্রবার বিকেলে র‍্যাব-১২ বগুড়া ক্যাম্পে অনুষ্ঠিত এক প্রেস ব্রিফিং এ এসব তথ্য জানান র‍্যাব-১২ বগুড়া ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার (পুলিশ সুপার) মীর মনির হোসেন। তিনি বলেন, ‘গ্রেপ্তার তাহাজুল নামে ওই ব্যক্তি ডাকাত দলের সর্দার। তার নামে বিভিন্ন থানায় চুরি ও ডাকাতির মোট ১৪ টি মামলা রয়েছে। এ পর্যন্ত ৫ শতাধিক গরু চুরি ও ডাকাতি করেছে বলে প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছে ওই ডাকাত সর্দার।’ র‍্যাবের এই কর্মকর্তা আরো বলেন, গ্রেপ্তার ওই ডাকাত সর্দার তার সহযোগীদের নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতি করেন। তার নামে এ পর্যন্ত বিভিন্ন থানায় ১৪ টি চুরি ও ডাকাতির মামলা রয়েছে। এর মধ্যে বগুড়া জেলার সদর থানায় ০৬টি, নওগাঁ জেলার বদলগাছী থানায় ০২টি, বগুড়া জেলার শাজাহানপুর থানায় ০২টি, রংপুর জেলার কাউনিয়া থানায় ০১টি, জিএমপি’র কোনাবাড়ী থানায় ০১টি, গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ থানায় ০১টি, জয়পুরহাট কালাই থানায় ০১টি মামলা রয়েছে। গ্রেপ্তার তাহাজ্জুল চক্রের কয়েকজন সক্রিয়ভাবে ডাকাতি করে। কয়েকজন ডাকাতির মালামাল অন্যত্র পরিবহন করে নিয়ে যায়। আর অন্যান্য সদস্যরা লুন্ঠনকৃত মালামাল বিক্রয়ের ব্যবস্থা করে। তাদের নির্দিষ্ট ক্রেতা রয়েছে। এ যাবত ৪ থেকে ৫’শ গরু চুরি ও ডাকাতি করেছে বলে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়।আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আসামিকে শিবগঞ্জ থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানান র‍্যাবের এই কর্মকর্তা।
এর আগে গত ২৩ জানুয়ারি টাঙ্গাইলের জামাল হোসেন নামে এক গরু ব্যবসায়ী একটি ট্রাকে করে ২২ টি গরু নিয়ে নীলফামারীর উদ্দেশ্যে রওনা দেন। পথে শিবগঞ্জ থানার রহবল এলাকায় পৌঁছালে ডাকাতদলের কবলে পড়েন। তখন ডাকাতরা ওই গরু ব্যবসায়ী এবং তার সহযোগিদের হাত-পা বেঁধে জমিতে ফেলে গরু নিয়ে পালিয়ে যান। পরে তিনি শিবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। এর পরেই অভিযান শুরু করে ডাকাত দলের এই সর্দারকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব।