পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল
শিরোনাম :

স্বামীকে ফোন করে বাঁচার আর্তনাদ, পরে সন্তানসহ মিলল লাশ

ডেস্ক: রাজধানীর বেইলি রোডের একটি ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে মা ও দুই শিশুসহ একই পরিবারের তিনজন মারা গেছেন।

নিহতরা হলেন- নাজিয়া আক্তার (৩১) ও তার দুই সন্তান আয়ান (৮), আয়াত (৬)।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নাজিয়ার আত্মীয় রিফাত হোসেন জানান, নাজিয়ার স্বামী মো. আশিক ব্যবসার কাজে বৃহস্পতিবার (১ মার্চ) সন্ধ্যায় বনানীতে যান। সে সময় দুই শিশু সন্তানকে নিয়ে ওই ভবনের একটি রেস্তোরাঁয় খেতে যান নাজিয়া। আগুন লাগার পর নাজিয়া তার স্বামীকে ফোন দিয়ে বাঁচার আর্তনাদ করেন। পরে ঢাকা মেডিকেলের মর্গে তাদের মরদেহ পাওয়া যায়।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯টা ৫০ মিনিটের দিকে ভবনটির দ্বিতীয় তলায় আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের ১৩টি ইউনিটের চেষ্টায় রাত ১১টা ৫০ মিনিটের দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

ভয়াবহ এই আগুনে এখন পর্যন্ত ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর আহত হয়েছেন ২২ জন। এরমধ্যে ৮ জন বার্ন ইনস্টিটিউটে এবং ১৪ জন ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন। আহতদের সবার অবস্থা আশঙ্কাজনক। ভবনের ভিতর থেকে ৭৫ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। গঠন করা হয়েছে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৮০ জনের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়। যা দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

চট্টগ্রামে বিআরটিএর অভিযানে ১৭ মামলা, জরিমানা অর্ধলাখ

স্বামীকে ফোন করে বাঁচার আর্তনাদ, পরে সন্তানসহ মিলল লাশ

আপডেট টাইম : ০৬:০৫:০০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪

ডেস্ক: রাজধানীর বেইলি রোডের একটি ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে মা ও দুই শিশুসহ একই পরিবারের তিনজন মারা গেছেন।

নিহতরা হলেন- নাজিয়া আক্তার (৩১) ও তার দুই সন্তান আয়ান (৮), আয়াত (৬)।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নাজিয়ার আত্মীয় রিফাত হোসেন জানান, নাজিয়ার স্বামী মো. আশিক ব্যবসার কাজে বৃহস্পতিবার (১ মার্চ) সন্ধ্যায় বনানীতে যান। সে সময় দুই শিশু সন্তানকে নিয়ে ওই ভবনের একটি রেস্তোরাঁয় খেতে যান নাজিয়া। আগুন লাগার পর নাজিয়া তার স্বামীকে ফোন দিয়ে বাঁচার আর্তনাদ করেন। পরে ঢাকা মেডিকেলের মর্গে তাদের মরদেহ পাওয়া যায়।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯টা ৫০ মিনিটের দিকে ভবনটির দ্বিতীয় তলায় আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের ১৩টি ইউনিটের চেষ্টায় রাত ১১টা ৫০ মিনিটের দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

ভয়াবহ এই আগুনে এখন পর্যন্ত ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর আহত হয়েছেন ২২ জন। এরমধ্যে ৮ জন বার্ন ইনস্টিটিউটে এবং ১৪ জন ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন। আহতদের সবার অবস্থা আশঙ্কাজনক। ভবনের ভিতর থেকে ৭৫ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। গঠন করা হয়েছে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৮০ জনের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়। যা দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ।